সদুপদেশ গ্রহন করার জন্য অন্তরে আগ্রহ সৃষ্টি না হওয়া এবং নিজের অভিমত খণ্ডিত হতে দেখেই অন্তরে ক্রোধের সৃষ্টি হওয়ার নামই অহংকার। আত্মপ্রশস্তি ও অহংকার মানুষকে নিম্নস্তরে নিয়ে যায়।

— ইমাম গাজ্জালি (রহঃ)

রেমা-কালেঙ্গা জাতীয় উদ্যান বা বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য

সুন্দর বনের পর বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক বনাঞ্চল হলো, রেমা-কালেঙ্গা জাতীয় উদ্যান বা বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য।বেশ হুট করে একদিনের নোটিশে প্রচন্ড শীতে রওয়া দিলাম রেমা-কালেঙ্গা বনের দিকে। শীতের মধ্যে যাত্রার শুরু টা মোটেও আরামদায়ক ছিলো না।সকাল ৭ টার মধ্যে সবাইকে কল দিয়ে একত্রিত করা। তাপমাত্রা ১২° সেলসিয়াস, যেখানে কুয়াশা বৃষ্টির মতো পড়ছে, এর মধ্যেই লক্ষ্যের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলাম।প্রচন্ড কুয়াশার মধ্যে আস্তে আস্তে এগিয়ে বেলা ১২ টার দিকে লক্ষ্য স্থানে পৌছুলাম। নির্ধারিত টিকেট কেটে বনে ঢুকে লম্বা ৩ ঘন্টার ট্রেইলে হাটা শুরু করলাম।আস্তে আস্তে লোকালয় ছেড়ে ঘন বনে প্রবেশ করতে চোখে পড়লো, বানর, কাঠ-বেড়ালি, সাপ সহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ। আরেকটু গভীর বনে দেখা মেললো, লেবু বাগান। আর স্বভাববশত সবার পকেটেই গোটা দুয়েক লেবু চালান হয়ে গেলো।একটু পর রোদ উঠলে আবার ব্যাক করলাম। এবার হারে হারে হাটার কষ্ট টের পাওয়া করলো। ততোক্ষণে খিদায় সবার পেট চুই-চুই।হবিগঞ্জ জেলার চুনারু-ঘাট উপজেলায় পৌছুতেই এক হোটেল পেট পূজা সারা হলো। এবার একটু চা পর্ব না হলেই না!চা পর্ব শেষ হলে, বাড়ি দিকে এগিয়ে চললাম। পথে পড়লো চা বাগান ; এতেও কয়েকটা ছবি তোলা হলো। বাড়ি ফেরার আগ পর্যন্ত পথে আরো কয়েকবার চা-বিরতি পাওয়া গেলো।স্বল্প সময়ের নোটিশে একদিনের ভ্রমণ হিসেবে এই ভ্রমণ একদম পার্ফেক্ট ছিলো। আড্ডা আর ভ্রমণের স্মৃতি হিসেবে সব সময় উজ্জ্বল হয়ে থাকবে এই দিন টি।আপনারাও চাইলে ঘুরে আসতে পারুন এই সংরক্ষিত বনাঞ্চলটি। লম্বা উচু-নিচু ট্রেইলে হাটতে হাটতে বেশ ভালো সময় কাটবে। জায়গাটি ক্যাম্প করার জন্য বেস্ট। #আসুন_যেখানে_সেখানে_প্লাস্টিক_না_ফেলি#পরিবেশ_বাঁচাই

Tahrim Hossain Saif(Travelers of Bangladesh (ToB))

What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

Leave a Reply