ফাগুনের রঙে রেঙেছো তুমি, না বলা কথা আজ বলবো আমিঃ হৃদয়ের ডাক শুনবে কি তুমি?

— – সংগৃহীত

মনপুরা দ্বীপ (Manpura Island)

মনপুরা দ্বীপ (Manpura Island) বাংলাদেশের ভোলা জেলার অন্তর্গত একটি বিচ্ছিন্ন ভূমি। মনপুরা দ্বীপের পূর্ব, পশ্চিম এবং উত্তর দিকে মেঘনা নদী প্রবাহমান আর দক্ষিণ দিকে রয়েছে বঙ্গোপসাগর। মনপুরা দ্বীপ থেকে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত দেখার বিরল সুযোগ রয়েছে। এছাড়া এই দ্বীপে আছে হরিণের অভয়াশ্রম, মনপুরা ল্যান্ডিং স্টেশন এবং চৌধুরী প্রজেক্ট। মেঘনা নদীর ৫০০ মিটার ভেতরে মনপুরা ল্যান্ডিং স্টেশনটি তৈরি করা হয়েছে। বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত স্থানীয় মানুষজন ও পর্যটকরা এখানে সময় কাটাতে আসেন। দ্বীপের হরিণের অভায়াশ্রমের হরিণগুলো জোয়ারের সময় প্রধান সড়কের খুব কাছে চলে আসে। মাঝে মাঝে হরিণ পালের রাস্তা পার হবার জন্য বাইক থামিয়ে অপেক্ষা করতে হয়। এছাড়া এই দ্বীপে চৌধুরী প্রজেক্ট নামে একটি মাছের ঘের আছে। বিশাল এলাকাজুড়ে বিস্তৃত পুকুর ও লেকের পাড় জুড়ে সারি সারি নারিকেল গাছ একটা বিকেল কাটানোর জন্য বেশ মোহনীয়। সাইক্লিং এবং ক্যাম্পিং করার জন্য মনপুরা দ্বীপ একটি আদর্শ জায়গা। সাইকেল নিয়ে নদী এবং সবুজের রাজ্যে হারিয়ে যাওয়া রোমাঞ্চকর অনুভূতি সৃষ্টি করে।
মনপুরা দ্বীপ ভ্রমণের সময়
শীতকাল মনপুরা দ্বীপ ভ্রমণের সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। শীতকালে মনপুরায় ক্যাম্পিং ভ্রমণে বাড়তি আনন্দের মাত্রা যোগ করে।
কিভাবে যাবেন
বিছিন্ন দ্বীপ হওয়ায় লঞ্চ হচ্ছে মনপুরা দ্বীপে যাওয়ার একমাত্র বাহন। ঢাকার সদরঘাট থেকে এমভি ফারহান-৩ এবং ৪ নামে দুটি লঞ্চ প্রতিদিন বিকাল ৫ টায় হাতিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে সকাল ৭ টা থেকে ৭ টা ৩০ মিনিটের মধ্যে মনপুরা দ্বীপে পৌঁছায়। লঞ্চ থেকে সূর্যোদয় দেখতে মোহনীয় লাগে। লঞ্চের ডেক চড়ে যেতে জনপ্রতি ৩৫০ টাকা ভাড়া দিতে হয়। মনপুরা রামনেওয়াজ লঞ্চঘাট থেকে দুপুর ২ টায় লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।
খাবার কি খাবেন
খাবারের দাম খুবি সামান্য।সেখানে গিয়ে হাঁস এবং নানারকমের মাছ খেতে পারেন।সেখানের মানুষ খুবি সরল ও সুন্দর মনের।আপনি বললে রান্না বান্না ও করে দিবে।
থাকার ব্যাবস্থা
হোটেল ও ডাকবাংলো আছে।হোটেলে ১০০-২০০ টাকা দুজন থাকার মত রুম পাবেন।সিঙ্গেল রুম।আর ক্যাম্পিং ও করতে পারেন নদীর পারে।নিরাপদ ক্যাম্পিং করা।
একজন কিংবা দুজন বা দলবদ্ধ হয়ে গেলে ও আপনি ঢাকা থেকে আসা যাওয়া সব খরচ মিলিয়ে ১৩০০-১৫০০ টাকায় আবার ব্যাক করতে পারেন এই সামান্য টাকায়।
দ্বীপ ও পরিবেশ এর প্রতি যত্নশীল হবেন।পরিচ্ছন রাখার প্রতি সচেতন হবেন।ময়লা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলবেন।

Mahdi Hasan Sakib(Travelers of Bangladesh (ToB))

What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

Leave a Reply