If life were predictable it would cease to be life, and be without flavor.

— Eleanor Roosevelt

বছরের শেষ, আসছে সুখবর! WHO- এর রিপোর্ট অনুযায়ী হাতের মুঠোয় করোনা ভ‍্যাকসিন।

২০২০-র মাঝামাঝি, নোভেল করোনা ভাইরাস তখন অতিমারীর আকার নিয়েছে সারা বিশ্বে, ব্রিটেন-,আমেরিকা-চিন-জাপান-ইজরায়েল ও এমনকি ভারতের ও তাবড় তাবড় বিজ্ঞানীরা বুঁদ হয়েছেন ভ‍্যাকসিন আবিস্কারের নেশায়। এগিয়ে রয়েছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়।

সারাবিশ্বে একদিকে এখন রয়েছে ভ‍্যাকসিন আবিস্কারের উন্মাদনা আর অন্যদিকে তার চেয়েও দ্বিগুণভাবে এখনো বেশ কিছু দেশে ছড়িয়ে পড়ছে COVID-19- এর প্রকোপ।
তাই বিজ্ঞানীদের মূল লক্ষ্য কিভাবে এই মারণরোগের থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, আর তাতে ইতিমধ্যে আশার আলো।দেখিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, তারা জানিয়েছেন পুনরায় শুরু হয়েছে ভ‍্যাকসিনের ট্রায়াল পর্ব আর তারফলে চলতি বছরের শেষেই হাতে আসবে ভ‍্যাকসিন।

মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ডিরেক্টর ট্রেডস অধানম সরাসরি জানিয়েছেন যে গতিতে ভ‍্যাকসিনের কাজ চলছে, তাতে বছরের শেষ থেকে শুরুর মধ্যেই এসে যাবে টিকা। WHO- এর পরিচালনায় এই মুহুর্তে ২০০টি ডোজ তৈরির লক্ষ্য নিয়েছে হু।

ডিজিসিআই অর্থাৎ ড্রাগস্ কনট্রোলার জেনারেল অফ্ ইন্ডিয়ার দেওয়া নির্দেশ অনুসারে সমস্ত রকম সতর্কতা মেনেই অক্সফোর্ডের করোনা ভ‍্যাকসিন কোভিশিল্ডের হিউম‍্যান ট্রায়াল আবার শুরু করেছে সেরাম ইন্সটিটিউট, রয়েছে স্বেচ্ছাসেবীদের একটি টিম শারীরিক অবস্থার খেয়াল রাখার জন্য।

Writer: Rickta Mukherjee

What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

Leave a Reply