The only impossible journey is the one you never begin

— Tony Robbins

মেসি এবং সমর্থকদের ভালোবাসা

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলে কাড়ি কাড়ি অর্থের হাতছানি। ক্লাবের প্রতি ভালোবাসা কিংবা আনুগত্যের চাইতে এখানে পেশাদারিত্বের চল বেশি। এই ক্লাব ফুটবলে অনেক বড় বড় তারকা প্লেয়ারই নিয়মিত দলবদল করে থাকেন। এমনকি রোনালদো ডি লিমা, লুইস ফিগোর মত অনেক তারকা ফুটবলারকেও ইতিপূর্বে রাইভাল টিমে জয়েন করতে দেখা যায়। এইতো কয়েক সিজন আগেই বর্তমান ফুটবল জগতের অন্যতম বড় তারকা, পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো স্প্যানীশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে ইতালীর চ্যাম্পিয়ন ক্লাব জুভেন্টাসে পাড়ি জমান।

সত্যি বলতে এসব দলবদলে সমর্থকদের ক্লাবের দিকে চেয়ে থাকা ছাড়া আর তেমন ফলপ্রসূ কিছু করার থাকে না। কিন্তু কোনো প্লেয়ার দল বদল করতে চাওয়ার সামান্য একটা ‘রিউমারে’ পূর্বে কখনো দেখেছেন তাকে দলে রাখার জন্য সমর্থকদের এমন আন্দোলন করতে? রাস্তায় নেমে প্লেয়ারকে থাকার জন্য কান্না করতে? কখনো দেখেছেন সমর্থকদের চাপে পুরো একটি বোর্ডের প্রায় সবাইকে রিজাইন করতে? কখনো দেখেছেন মিডিয়াতে এত হইচই, এত এত টুইট, এত গুগল সার্চ, এমন মুহুর্মুহু পরিস্থিতি?

মাঠে নামলে গোল অনেকেই করতে পারে কিন্তু মাঠের মধ্যে পায়ের যাদু দিয়ে মানুষের মনকে খুব কম প্লেয়ারই আবিষ্ট করে রাখতে পারে, মেসি যখন মাঠে নামে সবার মনে একটাই আশা থাকে আজ হয়তো নতুন কোন যাদু দেখাবে।

কাতালান মানুষজন ক্যাম্প ন্যূ এর সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেছে। তারা মেসিকে যেতে দিবেনা। এই ভক্তকুলই বার্সাকে “More than a Club” বানিয়েছে।

মেসি এবারের মত তাদের ভালোবাসায় বার্সায় থেকে গেলেও আগামী সিজনে ক্লাবে তার ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত সেটা নিজেই ভিডিওবার্তায় জানিয়েছেন! ভক্তদের ভালোবাসা কি পারবে তাকে ধরে রাখতে? যারা শুধু বার্সার জার্সিতেই মেসিকে দেখে তৃপ্ত থাকতে চায়? মেসি আরো কয়েক বছর কেবল বার্সার জার্সি গাঁয়ে বল পায়ে যাদু দেখিয়ে বার্সা থেকেই অবসরে যাবে এমনটা চায়? তবে সব চাওয়া যে সবসময় পূর্ণতা পায় এমনটাও নয়….

অর্ণব
শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

Leave a Reply