সুখ কখনও আবিষ্কার করা যায় না। এটি সবসময় তোমার কাছে আছে এবং থাকবে। তোমাকে কেবল দেখার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে।

— গৌতম বুদ্ধ

এক কিংবদন্তীর প্রস্থান

” কিন্তু সেটিই শেষ কথা নয়, সেটি ট্র‍্যাজেডিও নয়। সে মহৎ কিছু করছে না, তার দারিদ্র্য যাচ্ছে না, তার অভাব মিটছে না, কিন্তু তা সত্ত্বেও সে জীবনবিমুখ হচ্ছে না। সে পালাচ্ছে না, এস্কেপ করছে না। সে বাঁচতে চাইছে। সে বলছে, বাঁচার মধ্যেই সার্থকতা, তার মধ্যেই আনন্দ। হি ওয়ান্টস টু লিভ!”

কিংবদন্তী বাংলা চলচ্চিত্র অভিনেতা, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের ডায়লগগুলো এখনো সবার কানে প্রতিধ্বনি তুলে। বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী এই গুণী অভিনেতার প্রয়াণে আমরা শোকাহত। বিগত ছয় দশক ধরে নানা চরিত্রে অভিনয় করে তিনি দর্শকদের মন জয় করেছেন।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম হয় ১৯৩৫ সালের ১৯ই জানুয়ারি। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমহার্স্ট স্ট্রীট সিটি কলেজে সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৫৯ খ্রিষ্টাব্দে তিনি প্রথম সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় ‘অপুর সংসার’ ছবিতে অভিনয় করেন এবং পরবর্তীতে সত্যজিৎ রায়ের ৩৪টি সিনেমার ভিতর ১৪টিতেই অভিনয় করেছেন তিনি! এমনকি তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মত পরিচালকদের সঙ্গেও কাজ করেছেন। সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক, যাত্রা, এবং টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন।

একজন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে তিনি কিংবদন্তি। পাশাপাশি আবৃত্তি শিল্পী হিসেবেও তার নাম অত্যন্ত সম্ভ্রমের সাথেই উচ্চারিত হয়। তিনি কবি এবং অনুবাদকও।

আজ ১৫ই নভেম্বর,২০২০ তাঁর মৃত্যুতে আমাদের চলচ্চিত্র জগতের বিরাট ক্ষতি হল। আমরা তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।

  • অর্ণব
    শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ,
    জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।
What’s your Reaction?
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0
+1
0

Leave a Reply